তাঁর ভবিষ্যৎ নিয়ে আমি খুবই সন্দিহান…

আমি আমার পরিবারের একমাত্র মেয়ে। আমি অনার্স প্রথম বর্ষে পড়ছি। ছাত্রী হিসেবেও ভাল। গত ২ বছর আগে আমার একটি ছেলের সাথে ফেইসবুকে পরিচয় হয়। আমি তখন ইন্টারমিডিয়েটে পড়তাম। ভালবাসা ব্যাপারটা মাথায় কাজ করতো না। আমি মা বাবার খুবই বাধ্যগত মেয়ে। সেই ছেলেটি আমাকে প্রপোজ করার পর দুষ্টুমি করে আমি আমার পরিবারকে জানিয়ে দেই তার কথা। প্রথমেই জানিয়ে রাখি ছেলেটি আমাকে বলেছিল যে সে একজন মেডিকেল স্টুডেন্ট। ডাক্তারি পড়ছে। সেই হিসেবে আমি তাকে বিশ্বাস করেছিলাম। আর ব্যাপারটা আব্বু আম্মুর উপর ছেড়ে দিয়েছিলাম। তারপর সে আমার এবং আমার পরিবারের সবার সাথে দেখা করে এবং বলে যে সে আমাকে বিয়ে করতে চায়। আমার পরিবার তাকে পছন্দ করে, তাই আমিও কোন আপত্তি করিনি।

তার ফ্যামিলি স্ট্যাটাস আমাদের মতই। সেও আমার কথা তার বাসায় জানায়। তার বাসা আমাদের বাসা থেকে খুবই কাছে। কথা ছিল যে তার গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট হলে আমাদের বিয়ে দিবে। আমাদের সম্পর্ক চলার ১বছর পর সে আমাদের জানায় যে সে আমাদের কাছে এতদিন মিথ্যে কথা বলেছে। সে আসলে ডাক্তারি পড়ছেনা। সে একটা মেডিকেল কলেজে বিএসসি নার্সিং এ লেখাপড়া করছে। এইটা জানার পর আমি খুব হতাশ হয়ে পড়েছিলাম এবং আমার বিশ্বাস উঠে গিয়েছিল। সে তেমন ভাল ছাত্রও নয়। আমি এমনটা আমার লাইফে কখনই চাইনি। তারপর তার দুলাভাইরা আমাকে অনেক বুঝায় যে আমি যেন তাকে ছেড়ে না দেই। সে নাকি আমাকে সত্যি ভালবাসে। আমার আম্মুও তাকে ক্ষমা করে দেয় এবং আমাকে বুঝায়। তারপর সব ঠিক হয়ে যায়। কিন্তু আমি আজও তার এই প্রফেশনটা মেনে নিতে পারছি না।

সে আমাকে অনেক স্বপ্ন দেখায়। কিন্তু আমি তাকে পাত্তা দেই না। সে আমাকে অনেক ভালবাসে এটা সত্যি। কিন্তু পূর্বের কথা মনে হলে আমি ভয় পাই। আমি তার সাথে অনেকবার সম্পর্ক ভাঙার চেষ্টা করি,কিন্তু সে নিজেকে শেষ করে দেওয়ার হুমকি দেয়। তাই অনেক কষ্টে তার সাথে নিজেকে মানিয়ে নেই। সে খুবই ভদ্র একটা ছেলে এবং চরিত্রগত দিক দিয়েও খুব ভাল। এই ব্যাপার গুলার জন্যই আম্মুও তাকে না করতে চায় না। আমার জন্য অনেক ভাল ভাল প্রপোজাল আসে।কিন্তু আম্মু তাদের মানা করে দেয়।

এখন আমার সমস্যাটি হচ্ছে তাকে আমার বিয়ে করা উচিত হবে কিনা। সে আগামী বছর বিএসসি পাস করে বের হবে। তারপর এমএসসি পড়বে বলছে। তার প্রফেশন নিয়ে আমার কোন ধারনা নেই। তাই আমি তাকে বলেছি যে তুমি আগে চাকরি পাও,তারপর আমি তোমাকে বিয়ে করব। আর তার পরিবারও আমার পছন্দ নয়। তারা ২ ভাই ৫ বোন। সবারই বিয়ে হয়ে গেছে। সে সবার ছোট। এত অপছন্দের মাঝে কি আমি ভাল থাকতে পারবো? আমি তার উপর ভরসা করতে পারিনা।তার ভবিষ্যৎ নিয়ে আমি খুবই সন্দিহান।আমি বুঝতে পারিনা আমার আসলে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিৎ। আমি চাই না কোন ভুল সিদ্ধান্তের জন্য আমার জীবনটা নষ্ট হয়ে যাক।

পরামর্শ :

দেখুন আপু, আমার কিন্তু মনে হচ্ছে না ছেলেটি পাত্র হিসাবে খারাপ। হ্যাঁ, সে মিথ্যা বলে খুবই খারাপ কাজ করেছে। কিন্তু সত্যও তো সে নিজেই আপনাকে বলেছে। একজন মানুষ নার্সিং পড়লেই ভালোবাসার অযোগ্য হয়ে যায়, বিষয়টা কিন্তু মোটেও তেমন নয়। আপনি নিজেই বলছেন যে ছেলেটি খুবই ভালো ও চরিত্রবান, আপনার পরিবারও বলছে যে ছেলেটি ভালো। এটা আসলেই বেশ গুরুত্ব দেয়ার মত ঘটনা। কেননা আজকালকার যুগে একজন ভালো মানুষ পাওয়াই সবচাইতে কঠিন, টাকাওয়ালা তো অনেক পাওয়া যায়।

অন্যদিকে আপনার চিঠি পড়ে আমার মনে হচ্ছে ভবিষ্যৎ স্বামীকে নিয়ে আপনার মাথা কিছু ছক আছে। সব মেয়েরই থাকে। এবং এটাও মনে হচ্ছে আপনি ছেলেটিকে সেভাবে ভালোবাসেন না। ভালোবাসা থাকলে যে কোন কিছুকেই মানিয়ে নেয়া যায়। কিন্তু ভালোবাসা না থাকলে সব কিছুকেই অপছন্দের মনে হতে থাকে। এবং হ্যাঁ, এত অপছন্দের মাঝে কিন্তু মানুষ ভালো থাকে না। আপনি যদি সত্যিই ছেলেটিকে মন থেকে মেনে নিতে না পারেন, তাহলে সম্পর্ক ত্যাগ করুন আপু। কেননা এই বিয়ে করে আপনি নিজে তো খারাপ থাকবেনই, ছেলেতিকেও আজীবন খারাপ রাখবেন। এর চাইতে আপনি সরে যান তাঁর জীবন থেকে, তাঁর জীবনে এমন কাকে আশার সুযোগ দিন যে সবকিছু দেখেশুনে তাঁকে ভালবাসতে পারবে।

আরেকটা কথা আপু, অর্থ চাইলেই উপার্জন করা যায়। কিন্তু চাইলেও ভালো মানুষ হয়ে ওঠা যায় না। ছেলেটি যদি আসলেই ভালো মানুষ হয়ে থাকে, আপনি দ্বিতীয়বার ভেবে দেখতে পারেন।

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top