স্বামী গ্রামে নিজের মা-বোনের সাথে থাকে, আমি ঢাকায়…

প্রশ্নটি আমাদের ফেসবুক পেজে করেছেন : নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নারী

আমার বয়স ২৫। আমার বিয়ে হয়েছে আজ ৬ বছর। আমার স্বামী ঢাকার বাইরে তার পরিবারের সাথে থাকে। আমি ঢাকায় লেখাপড়া করি, আমার বাবার বাড়িতে থেকে। আমাদের ভালোবেসে বিয়ে। সে সম্পর্কে আমার ফুফাতো ভাই।

তার লেখাপড়া খুব বেশি না। বিয়ের পর ৭ মাস আমরা ভালো ছিলাম। কিন্তু আস্তে আস্তে আমদের মতের অমিল দেখা দেয়। সে আমাকে বুঝেনা। সে বেকার। কিছু ছোট ব্যবসা করে। আমি টিউশনি করে নিজে চলি এবং তাকে টাকা পাঠাই। গত ৩ বছর থেকে তার ব্যবহার অনেক খারাপ হয়ে গেছে। সে আমাকে নানা ভাবে অপমান করে কথা বলে। আমিও তার উপর বিরক্ত কারণ আমি বাজে ভাষা সহ্য করতে পারিনা। কিন্তু তাকে অনেক ভালোবাসি তাই ছাড়তেও পারছিনা। সেও আমাকে ছাড়তে চায়না। বলে তার আশেপাশের পরিস্থিতির কারণে সে বাজে ব্যবহার করে।

আমি তাকে বলেছি ঢাকায় কিছু করতে কিন্তু সে অতটা আগ্রহী না। আমি শহরে বড় হয়েছি তাই গ্রামে গিয়ে থাকা আমার জন্য অনেক সমস্যার ব্যাপার। তার বাবা এবং বড় ভাই মারা গিয়েছে। তার মা আর ছোট ভাইয়ের সাথে সে থাকে। আমি বুঝতে পারছিনা কী করবো। তার বাজে ব্যবহার ও সহ্য হয়না আবার তাকে ছাড়তেও পারছিনা। ঝগড়া করলে বলে আমি নাকি স্বার্থপর, তার পরিবারের কথা ভাবিনা। কিন্তু আমি নিজের আগে তাদের কথা ভাবি। নিজের কোন ইচ্ছা পূরণ না করে তাদের সমস্যার সমাধান করি। তারপরও কোন মুল্য নেই। আমি এখন কী করবো?

 

পরামর্শ

যদি বাস্তবতা বিচার করি, তাহলে আপনার এই সম্পর্ক সুখের হবার সভাবনা অনেক কম। সুখের হলে আসলে অনেক আগেই হয়ে যেতো। ৬ বছর যাবত দূরে থাকেন, বিয়ে করার আনন্দটুকু জীবনে কিছুই নেই কিন্তু যন্ত্রণা সব আছে। আর আপনার স্বামীর ব্যাপারটি একেবারেই অদ্ভুত। প্রেমের বিয়ে, কোথায় তিনি নিজের স্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন, উল্টো স্ত্রীর টিউশনির টাকাও নিয়ে নেন। নিজে কাজ করা সত্ত্বেও স্ত্রীর টাকা কেউ নেয়? আপনি চাকরি বাকরি করলেও না হয় একটা কথা ছিল! আবার অন্যদিকে আপনাকেই বলে যে আপনি স্বার্থপর!

আমি জানিনা আপু আপনি কীভাবে এটাকে ভালোবাসা বলছেন। আমার স্বামী এমন করলে আমি হয়তো ব্যাপারটাকে ভালোবাসা ভাবার আগে দুইবার ভেবে নিতাম। কারণ আপু, ভালোবাসা কোন এমন জিনিস নয় যে একজন কেবল দিয়েই যাবে আর আরেকজন নিয়ে যাবে।

যাই হোক, আমার মনে হই এই সম্পর্কটির ব্যাপারে আপনার দ্বিতীয়বার চিন্তা করা উচিত এবং নিজের পিতা মাতার সাথে কথা বলা উচিত। যেহেতু প্রেমের বিয়ে ও স্বামীকে অনেক ভালোবাসেন বলছেন, সেহেতু আপনার পরিবারের মাধ্যমে এবার স্বামীর সাথে সরাসরি কথা বলান। তাঁকে বলা হোক যে আপনার সাথে সংসার করতে হলে তাঁকে ঢাকাতেই আসতে হবে। কেননা আপনি লেখাপড়া শেষে চাকরি করবেন, স্বামীর নিজের কোন ক্যারিয়ার যেহেতু নেই সেহেতু আপনাকেই চাকরি বাকরি করতে হবে। তিনি ঢাকায় এসে কিছু একটা করবেন, বড় শহরে সুযোগও বেশি। আর মা বোনকে যদি রেখে আসতে না চান, নিয়েই আসবেন। আপনি আর শ্বশুরবাড়ির ৩ জন মিলে বাসা নিয়ে থাকবেন একসাথে।

তবে বলে রাখি আপু, এতে আপনার কষ্ট বাড়বে বৈ কমবে না। যেহেতু স্বামীর শিক্ষা নেই, কাজেই মন নেই… সে ঢাকায় আসার পর আপনাকেই তাঁর মা বোন সহ স্বামীকে খাওয়াতে হবে। এটা অবর্ণনীয় একটা চাপ। এক পর্যায়ে আপনি কেবলই টাকার একটা মেশিন হয়ে যাবেন। আমি বলি কি, আপনি তাঁকে টাকা দেয়া বন্ধ করে দিন। বলুন যে আপনি আর টিউশনি করতে পারছেন না। তারপর দেখুন কী হয়। টাকা দেয়া বন্ধ করার পর কিছু মাস যেতে দিন। সে যদি বিষয়টি মেনে নিয়ে নিজে জোরেসোরে কিছু করার চেষ্টা করে, খুবই ভালো কথা। করুক। আপনি ভুলেও আর টাকা দিতে যাবেন না। আর যদি সে বলে আপনার পরিবারের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাঁকে দিতে, তাহলে নিশ্চিত হয়ে যাবেন যে লোকটি টাকার জন্যই আপনাকে বিয়ে করেছে। সেক্ষেত্রে এই সম্পর্ক ত্যাগ করাই আপনার জন্য ভালো হবে।

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top