অন্য মেয়ের সাথে সম্পর্ক ধরে ফেললে স্বামী আমার গায়ে গরম পানি ঢালতে আসে.

আমি অনেক কষ্টের জীবন পার করছি। আড়াই বছর হল আমাদের বৈবাহিক জীবনের। আমার ৬ মাসের একটি কন্যা সন্তান আছে। সন্তান হওয়ার কিছুদিন পর থেকে আমার স্বামীর সম্পর্কে বিভিন্ন মেয়ের সাথে ফোনে কথা বলা আর শারীরিক সম্পর্কের ব্যাপারে বুঝতে ও জানতে পারি। আমি যখনই তাকে তাদের সাথে মিশতে বাধা দেই সে আমাকে শারীরিক নির্যাতন করে।

তার ফোনের ম্যাসেজ আমার কাছে ধরা পড়ে বলে সে আমার গায়ে বাবুর ফ্লাক্সের গরম পানি ঢালতে আসে। তার মোবাইলে আমি মেয়েদের ছবি পাই বলে সে আমাকে স্যান্ডেল দিয়ে মারে। এর আগে একবার নিজের অজান্তে আমার কন্সিভ হয় আর সে মাদকাসক্ত অবস্থায় আমাকে অনেক মেরে আঘাত করে। তারপর আমরা জানতে পারি আঘাত পাওয়ার কারণে আমার বাচ্চাটি নষ্ট হয়ে যায়। অনেক চেষ্টার পরও ডাক্তার আমার বাচ্চাটিকে বাঁচাতে পারেনি। তারপর সে আমাকে এমন আর হবেনা বলে কথা দেয় আর তারপর আমাদের একটি কন্যা সন্তান হয়।

কিন্তু সন্তান হবার ৯ দিনের মাথায় আবার মারধর করে এবং প্রায় প্রতিদিনই সে আমাকে এমন নির্যাতন করে আমি নির্দোষ থাকা সত্ত্বেও। আমার কোন বড় ভাই নেই। আমার বাবা হার্ট অ্যাটাকের খুব খারাপ অবস্থায় রোগী, তার পক্ষে আমার জীবনের কোন দুঃসংবাদ মেনে নেয়া সম্ভব নয়। আমার শ্বশুর বাড়ির সবাই গ্রামে থাকে। তারা অশিক্ষিত আর আমার স্বামীর মত আর্থিক অবস্থা অতটা ভালোনা। তাই তারা আমার স্বামীকে অনেক মানে এবং ভয় পায়। তাকে শাসন করা তাদের পক্ষে সম্ভব না।

আমার স্বামী ব্যবসায়ী। তার অনেক পুলিশ, রাজনৈতিক লোক জনের সাথে ভালো সম্পর্ক তাই সে আমাকে ক্ষমতার হুমকি দেয়। আমি এই অবস্থায় আমার মেয়ে নিয়ে কি করতে পারি? আমাকে আর কতদিন এভাবে নির্দোষ হওয়ার পরও শারীরিক, মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে হবে? আমি কী করতে পারি?

প্রশ্নটি আমাদের ফেসবুক পেজে করেছেন : নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নির্যাতিত নারী

 

পরামর্শ

সত্য এটাই যে আপনাকে ততদিন পর্যন্ত কষ্ট সহ্য করতে হবে, যতদিন আপনি এটার ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেবেন না। এটা হবে না, সেটা পারবো না এসবই যদি ভাবতে থাকেন তাহলে জীবন কেটে যাবে এই অন্ধকারেই। আপনি আগে থেকেই জানেন স্বামীর চরিত্র খারাপ, সে আপনাকে মারধোর করে। তাহলে এই বাচ্চাটা শুধু শুধু নিতে গেলেন কেন? নিজেরও কষ্ট বাড়ালেন আর বাচ্চারও।

বাবা হার্টের রোগী, আত্মীয়রা গরীব ইত্যাদি সব বাহানা আপু। একজন পিতা কখনোই চাইবেন না তার কন্যাকে স্বামী মারুক। আর যা সত্য, সেটা সত্যই। এই সত্যকে গোপন রেখে তো কোন লাভ নেই। আর আত্মীয়দের দ্বারা শাসন করে কি সংসার হয়? দুজন মানুষের সম্পর্ক কি বাইরের মানুষেরা মিলে সুখের করে দিতে পারে? পারে না।

আপনি এখন মনে মনে সিদ্ধান্ত নিন যে আসলে কী চান। স্বামীর বাড়ির আরাম আয়েশ, নাকি এই অশান্তি থেকে মুক্তি? কারণ দুটো আপনি একসাথে পাবেন না আপু। যদি মুক্তি চান, তাহলে পারিবারিক আইন ও সালিস কেন্দ্রে যোগাযোগ করুন। তাঁরা বিনা পয়সায় আপনার ডিভোর্সের ব্যবস্থা করে দেবে, আপনার দেনমোহর ও সন্তানের ভরণপোষণের জন্যও সব রকম আইনি লড়াই করবে।

ঠিকানা-
7/17, Block-B, লালমাটিয়া, ঢাকা-১২০৭
ফোন নাম্বার হল- 02-8126134

আর যদি স্বামীকে ছাড়তে না চান, তাহলে মুখ বুঝে সহ্য করুন। কারণ এমন মানুষেরা কেবল সিনেমাতেই ভালো হয়, বাস্তবে নয়। তাই নিজে স্বাবলম্বী হওয়ার চেষ্টাটাই মাথায় রাখুন।

 

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top