“মেয়েটা দেখতে তেমন ভালো না, কিন্তু আমি… “

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানিয়েছেন নিজের সমস্যার কথা। 

“একটা মেয়ের সাথে আমার সম্পর্ক ঠিক ১ বছর ২১ দিন আগে গড়ে উঠে। মেয়েটা আমার ১ বছরের বড়। সাক্ষাৎটা বলা চলে ফেসবুকেই। সাতদিন পরেই আমরা দেখা করি। সেদিনই তার হাত ধরতে দেয়।

যাইহোক, আমি তখন একটা পাবলিক ভার্সিটিতে নতুন ভর্তি হয়েছি, ঢাকাতেও নতুন। সে আমাকে একটা টিউশনি খুঁজে দেয়। পরবর্তীতে সে আমার পড়াশুনার ক্ষেত্রে অনেক হেল্প করে। ঢাকা থেকে ৩০ কি.মি দূরে আমার ভার্সিটিতে সে আমার সাথে দেখা করতে আসত। আমাকে ম্যাথ বুঝিয়ে দিত (আমরা দুজনেই bba এর স্টুডেন্ট)। আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে সে খুব ভাবত।

এখন কিছু কথা বলা দরকার বলে আমি মনে করি। মেয়েটার এর আগেও ৩ টা সম্পর্ক ছিল। ক্লাস নাইনে একটা বখাটের সাথে সম্পর্ক হয়, অতঃপর বিয়ে। (আমি সম্পর্কের ১ মাস পরে জেনেছি) সেইদিনই তার পিতামাতা তাকে সেখান থেকে নিয়ে আসে। কিছুদিন পরে ডিভোর্স করিয়ে নেয়। তারপর তারা সাতক্ষীরা থেকে ঢাকা আসে HSC-তে ভর্তি হয়। সে ssc, hsc তে A+ পায়। (সে অনেক ভাল ছাত্রী হয়ে যায়) ঢাকায় এসে আরেক ছেলের সাথে ফোন যোগাযোগের মাধ্যমে রিলেশনশিপে জড়িয়ে পড়ে। সেটা দুইবছর স্থায়ী হয়। (এটা আমাদের রিলেশনের শুরুতে সে গোপন করে)। অতঃপর সেটা সে ব্রেকআপ করে ছেলেটা অযোগ্য তাই। তারপর সে ঢাকা ভার্সিটির এক ছেলের সাথে রিলেশন করে যা ৬ মাস স্থায়ী হয়। (আমাকে বলেছিল ১ মাস)। যাইহোক আমি এসব সময়ের ব্যবধানে জানতে পারি। আমি তখন তাকে খুব ঘৃণা করতে শুরু করলাম কিন্তু কিছুদিন পরে ভাবলাম যা হয়েছে হয়েছে আমার সাথে পরিচয়ের আগে এসব ঘটেছে। সম্পর্কের ভেতরে তো আর এরকম কিছু করেনি। তাই আমি আবার তার সাথে জড়ালাম।

মেয়েটা দেখতে তেমন ভালনা, কিন্তু আমি চেহারা দেখে ভালবাসিনি। মেয়েটা খুব অসহায়। তার বাবা প্রচন্ড বাজে, দুই-তিনটা বিয়ে করেছে। পরিবারে অনবরত গন্ডগোল, এসবের কারণে আমার খুব মায়া হয়, এখনো। এই ১ বছর রাগ, অভিমান, রোমান্টিকতা এসব করতে করতে কেটে গেছে। এখন মূল কথা হল, আমি যদি ১ দিন তার সাথে যোগাযোগ না করি বা কোন কথা গোপন করি, সে রাগ করে বা অভিমান করে আমাকে ছেড়ে যাবার কথা বলে। আর একটা কথাই শুধু বলে আমি নাকি তাকে বুঝিনা। এক বছরে ৩০ বারের বেশি ব্রেকআপ হয়েছে, একদিনেই আবার জোড়া লেগেছে। গত ঈদের পর থেকে ঝগড়াটাই বেশি হয়েছে। এর মধ্যে আমাদের শারীরিক সম্পর্ক ব্যতীত সবই হয়েছে। সম্প্রতি আমি আমার এক্সাম এর কারণে ও ফোনে ব্যালান্স না থাকার কারণে যোগাযোগ করতে পারিনি। সে কাল ব্রেকআপ করেছে। আর বলেছে “তোমার সাথে থাকতে গিয়ে সুখের চেয়ে কষ্ট বেশি পেয়েছি, তাই তোমাকে ছাড়া কষ্ট পাওয়াই তো বেটার তাইনা!”

আমি কল দিলে আর কল ধরেনা, এসএম এস এর উত্তর দেয়না। অর্থাৎ আমাকে আর সে চায়না। মেয়েটার ভাল দিকগুলো- ১. প্রচন্ড কেয়ারফুল। ২. আমার পড়াশুনার দিকে খুব নজর রাখে। ৩. খারাপ বন্ধু, সিগারেট থেকে দূরে রেখেছে। ৪. খুব কষ্ট সহ্য করে। ৫. অনেক মেধাবী। ৬. কোন গিফট, টাকা এসবের উপর ইন্টারেস্ট নেই। ৭. খাব-খাব টাইপ না, খুব মিতব্যয়ী। আমার খারাপ দিক- ১. কেয়ারলেস ২. আমি কোন কাজ হবার পর অধিকাংশ ক্ষেত্রে জিজ্ঞাসা করার পর বলি।

আমার এখন কী করা উচিত? এই সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া?, মেয়েটা কেমন? এর সাথে সম্পর্ক কি ভুল ছিল?”

 

পরামর্শ:

ভাইয়া, আমার মনে হচ্ছে না যে মেয়েটির সাথে সম্পর্ক করে আপনি ভুল করেছেন বা কিছু। বরং একজন ভালো প্রেমিকা বা হবু স্ত্রীর মাঝে যেসব গুনাবলী থাকা দরকার, মেয়েটির মাঝে সেগুলো সবই আছে বলে দেখতে পাচ্ছি। আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন যে মেয়েটি আপনার সাথে জীবন কাটাতে আগ্রহী, কেননা আপনার জন্য মেয়েটি যা যা করেছে সেগুলো প্রমাণ করে যে মেয়েটির দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা আছে আপনাকে ঘিরে। আমার মনে হয় ভালোবাসার অভাব না থাকলে সম্পর্কটি চালিয়ে যাওয়াই আপনাদের জন্য উচিত হবে।

আপনি কেয়ারলেস ও অস্থির প্রকৃতির, তাই হয়তো মেয়েটির সবসময় মনে হয় যে আপনি হয়তো তাঁকে ছেড়ে যেতে পারেন আর সেই ব্যাপারটি নিয়ে সে হয়তো মানসিক কষ্ট বা ভয়ে ভোগে। এই ভয়ের কারণেই সে হয়তো আপনাকে বারবার ছেড়ে যাওয়ার কথা বলে ভয় দেখায়। কিন্তু নিশ্চিত থাকতে পারেন যে আপনি যদি বাড়াবাড়ি কষ্ট না দিয়ে ফেলেন, তাহলে মেয়েটি যাবে না আপনাকে ছেড়ে।

তবে হ্যাঁ ভাই, মেয়েটি এমনিতেই যেহেতু অনেক দুঃখী আর অসহায়, তাই আপনি চেষ্টা করবেন মেয়েটিকে কষ্ট না দিতে। সে আপনাকেই জীবন হিসাবে আঁকড়ে ধরেছে এখন। অতীত কিন্তু অতীতই, আপনি তাঁর বর্তমান। এই আপনি যদি তাঁকে কষ্ট দেন, তাহলে মেয়েটি একেবারেই ভেঙে পড়বে। আপনি ভালো করে ভেবে দেখুন যে মেয়েটিকে জীবন সঙ্গিনী রুপে চান কি চান না। উত্তর যদি হ্যাঁ হয়, তাহলে নিজেকে একটু বদলে নিন, সম্পর্কের হাল ধরতে শিখুন, একটু ম্যাচিউর হয়ে উঠুন। এমন কিছু করবেন না যাতে ভালোবাসার মানুষটি কষ্ট পায়। তীব্র আবেগের নাম ভালোবাসা নয়, সুখে-দুঃখে পাশে থাকার নামই ভালোবাসা।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top