বাংলাদেশের ডিস ব্যবসায়ীর সাথে ফেসবুকের জুকারবার্গের আইনি টক্কর

এস কে শামসুল ইসলাম নামে বাংলাদেশ এক ডিশ ব্যবসায়ী ফেসবুকের একটি ডোমেইনের দাম চেয়েছেন ৬ মিলিয়ন ডলার বা ৫১ কোটি টাকা। যা দিতে রাজি নয় মার্ক জুকারবার্গের ফেসবুক। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে মামলা করে ফেসবুক।

রাজধানীর গ্রীন রোডের এক ডিস ব্যবসায়ীর প্রতিষ্ঠানের সাথে আইনি লড়াইয়ে নেমেছে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ।

ফেসবুক ডটকম ডট বিডি নামে ডোমেইন নিবন্ধন করার অভিযোগে বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান এ–ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেড ও এস কে শামসুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে গত ২২ নভেম্বর ক্ষতিপূরণ চেয়ে ঢাকার জেলা জজ আদালতে মামলা করেছে ফেসবুক।

মামলায় ৫০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে। একইসাথে এ–ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেডের নামে ফেসবুক ডটকম ডট বিডির নিবন্ধন বাতিল চেয়ে ফেসবুকের নামে নিবন্ধন দেওয়ার দাবী করা হয়েছে। ফেসবুক ডটকম ডট বিডি নামের এই ডোমেন যাতে বিবাদীরা হস্তান্তর করতে না পারেন, সে জন্য স্থায়ী নিষেধাজ্ঞাও চেয়েছে ফেসবুক।

মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) মামলার শুনানির দিন ধার্য থাকলেও তা পিছিয়ে আগামী ১৪ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ফেসবুকের আইনজীবী ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলাম এসব বিষয় জানিয়েছেন।

মোকছেদুল ইসলাম জানান, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গের নিয়োগ পাওয়া প্রতিনিধি হিসেবে তিনি মামলা করেছেন এবং সেটি পরিচালনাও করছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাজধানীর গ্রীন রোডের ৬৫ নম্বর বাড়ির চার তলায় একটি ছোট কক্ষ ভাড়া নিয়ে ডিস ব্যবস্যা ও ইন্টারনেট সংযোগের ব্যবসা পরিচালনা করছে এ–ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেড। অফিস কক্ষে কয়েকটি পুরানা কম্পিউটার আর ডিস ও ইন্টারনেটের তার ছাড়া কিছু নেই।

প্রতিষ্ঠানটিতে কর্মরতরা জানান, গ্রীনরোড এলাকায় ডিস ব্যবসা পাশাপাশি লোকাল ইন্টারনেট পরিবেশক হিসেবে কাজ করে প্রতিষ্ঠানটি। এই এলাকায প্রায় আড়াইশ বাড়িতে ডিস কানেকশন ও শ’ খানে বাড়িতে তাদের ইন্টারনেট সংযোগ রয়েছে।

স্থানীয় মুদি দোকানি ইমরান হোসেন টিবিএসকে বলেন, এরকম একটি লোকাল ডিস ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ফেসবুকের সাথে টক্কর লেগেছে, বিষয়টি শোনার পর এলাকার লোকজন বেশ বিষ্মিত হয়েছে।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হলো ফেসবুক ডট কম। তাদের বার্ষিক আয় প্রায ২১ বিলিয়ন ডলার। প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায়। এজন্য একজন বিশেষ কর্মকর্তাও নিয়োগ দিয়েছে। ব্যবসার জন্য প্রয়োজন ফেসবুক ডট কম ডট বিডি নামের একটি ওয়েবসাইট।

আইনজীবী জানান, প্রভাবশালী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশে ২০১০ সালের ১৪ জানুয়ারি বাংলাদেশের পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর থেকে ফেসবুক ডটকম নামটি নিবন্ধন করায়। পরবর্তী ফেসবুক ডট কম ডট বিডি ডেমেইনের জন্য ২০১৬ সালে বিটিআরসিতে আবেদনও করে।

তবে ২০১০ সালে ফেসবুক ডটকম ডট বিডি নামে একটি ডোমেইন বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) কাছ থেকে বরাদ্দ নেন এস কে শামসুল ইসলাম।

একইসঙ্গে ফেসবুক ডটকম ডট বিডি নামের ডোমেইনটি বিক্রি করার জন্য অনলাইনে বিজ্ঞাপনও দেওয়া হয়। যেখানে দাম হাকা হয়েছে ৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

২০১৬ সালের শেষ দিকে বিষয়টি ফেসবুক কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। এরপর ডোমেইনটি বন্ধ করার জন্য আইনি নোটিশও পাঠায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। তবে তা বন্ধ করা হয়নি। এস কে শামসুল ইসলাম ডোমেইনটির দাম চেয়েছেন ৬ মিলিয়ন ডলার বা ৫১ কোটি টাকা। যা দিতে রাজি নয় মার্ক জুকারবার্গের ফেসবুক। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে মামলা করে ফেসবুক।

আইন বিশেষজ্ঞ ব্যারিস্টার তানজীব-উল আলম দ্যা বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডকে বলেন, আন্তর্জাতিক ও দেশীয় কপিরাইট আইন অনুযায়ী এ–ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেডের কোনোভাবেই ফেসবুকের নাম ব্যবহার করে ফেসবুক ডট কম ডট বিডি নামের কোনো সাইট পরিচালনার সুযোগ নেই। কপিরাইট সংক্রান্ত প্যারিস কনভেনশনে যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশ উভয়ই স্বাক্ষরকারী দেশ।

তিনি বলেন, প্যারিস কনভেনশন অনুযায়ী এরকম আন্তর্জাতিকমানের সাইটের কপিরাইট সুরক্ষায় স্বাক্ষরকারী দেশগুলো একে অপরকে সহযোগীতা করবে। এ–ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেড যেটা করছে তার কোনো আইন ভিত্তি নেই। আর বিটিআরসির যে অনুমোদন দিয়েছে, সেটাও যৌক্তিক নয়।

তবে এ–ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেডের ব্যবস্থাপক মির্জা বায়েজিদ হোসেন টিবিএসকে বলেন, সকল ধরনের আইন মেনে ২০১০ সালে বিটিআরসির কাছ থেকে ফেসবুক ডট কম ডট বিডির অনুমোদন নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘ফেসবুক যেহেতু আদালতে মামলা করেছে, আমরা মামলার মোকাবিলা করবো। আশা করি আমাদের পক্ষে আদালতের রায় আসবে।’

বিটিআরসির আইনজীবী ব্যারিস্টার রেজ-ই খন্দকার টিবিএসকে বলেন, যেহেতু ফেসবুক আদালতে মামলা করেছে, সেখানেই ফয়সালা আসবে।

COMMENTS

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top