যে ৯টি জিনিস ভুলেও দেবেন না মাইক্রোওয়েভের ভেতরে!

ব্যস্ত জীবনকে সহজ করতে আমরা নানা ইলেক্টোনিক জিনিসপত্র ব্যবহার করে থাকি । এর মধ্যে মাইক্রোওয়েভ ওভেন অন্যতম। দ্রুত খাবার গরম করতে এর জুড়ি নেই। আজকাল অনেক মাইক্রোওয়েভ ওভেনে খাবার গরম করার পাশপাশি ব্রেক, তন্দুরি ও হরেক রকম রান্নাও  করা যাচ্ছে। নিত্য প্রয়োজনীয় এই জিনিসটিতে  কিছু জিনিস আছে যা ব্যবহার করতে হয় না, রান্না করতে হয় না বা এর ভেতরে দেয়া যায় না। আমরা অনেকেই ভুল বশত এই জিনিসগুলো মাইক্রোওয়েভ ওভেনে দিয়ে থাকি।   onegoodthingbyjillee.com, huffingtonpost.com, .rd.com এবং lifehack.org এমন কিছু জিনিসের কথা উল্লেখ করেছেন যা মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ভেতরে উচিত নয়।

১। বরফযুক্ত মাংস

বরফযুক্ত মাংস রান্না হতে সময় বেশি লাগে। যখন ৪০-১৪০ ফারেনহাইটে মাংস রান্না করা হলে এর ব্যাকটেরিয়াগুলো তিন গুন বেড়ে যায়। আবার এক জাপানি গবেষণায় দেখা গেছে যে মাংস ৬ মিনিটের বেশি সময় ধরে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে রান্না করলে এর ভিটামিন অনেক কমে যায়। তাই মাংস ফ্রিজ থেকে বের করার সাথে সাথে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে রান্না না করে কিছুক্ষণ বরফ গলতে দিন। মাংস খুলে গেলে তারপর রান্না করুন।

২। কাঁচা ডিম

মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ভুলেও ডিম সিদ্ধ করতে যাবেন। এতে করে ডিম ফেটে গিয়ে মাইক্রোওয়েভ ওভেন নষ্ট হতে পারে। এমনকি আপনার আঙ্গুলও পুড়ে যেতে পারে। মাইক্রোওয়েভ ওভেন থেকে তাপ দ্রুত ডিমের মধ্যে অনেক বাষ্প সৃষ্টি করে। আর এই কারণে ডিম ফেটে যায়।

৩। মায়ের বুকের দুধ

মাইক্রোওয়েভ ওভেনে মায়ের বুকের দুধ গরম করবেন না। মাইক্রোওয়েভ ওভেন দুধের গুণাগুণ, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, প্রোটিন নষ্ট করে দেয়। এমনকি অনেক ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দুধে বৃদ্ধি করে থাকে।

৪। টক দইয়ের কনটেইনার

ওয়ান টাইম ব্যবহারযোগ্য প্লাষ্টিক কনটেইনার যেমন টক দই, ক্রিম বা অন্য কিছুর কনটেইনার মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ব্যবহার করা যাবে না। এগুলো শুধু একবার মাত্র ব্যবহারযোগ্য উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয়। যার ফলে এই কনটেইনারগুলোর ক্রেমিক্যাল উপাদানগুলো মাইক্রোওয়েভ ওভেনের তাপে গলে খাবারের সাথে মিশিয়ে যায়।

৫। আঙ্গুর এবং কিশমিশ  

আঙ্গুর এবং কিশমিশ এক সাথে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে দিবেন না। তারা একসাথে প্লাজমা উৎপাদন করে থাকে। কিশমিশ থেকে ধোঁয়া উৎপাদন করে এমনকি মাইক্রোওয়েভ ওভেনে আগুনও ধরাতে পারে।

৬। প্লাষ্টিক কনটেইনার

এই কাজটি কম বেশি আমরা সবাই করে থাকি। এটিতে মাইক্রোওয়েভ ওভেন বা প্লাষ্টিক কনটেইনারের তেমন ক্ষতি না হলেও আপনার খাবারের মান কমে যায় অনেকখানি। প্লাস্টিক কনটেইনার অনেক উপাদান দিয়ে তৈরি হয়ে থাকে তার মধ্যে বিপিএ অন্যতম। খাবার যখন প্লাষ্টিক কনটেইনারে গরম করতে দেওয়া হয় তখন এর রাসায়ানিক উপাদানগুলো তাপে গলে খাবারের সাথে মিশে যায়- Environmental Health Perspectives এমন তথ্য প্রকাশ করেছেন।

৭। চায়না বা ডিজাইন সিরামিক প্লেট

USDA এর মতে মেটালিক ডিজাইন করা সিরামিক প্লেট বা চায়না প্লেট মাইকোওয়েভ ওভেনে ব্যবহার করবেন না। মাইক্রোওয়েভ ওভেনের তাপে মেটালিকের সাথে প্রতিক্রিয়া করে মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ক্ষতি করে থাকতে পারে।

৮। খালি মাইক্রোওয়েভ ওভেনে চালু

আপনি যদি শূন্য অবস্থায় মাইক্রো ওভেন চালু করেন তবে এর ভিতরের থাকা ম্যাগনিট্রন বিস্ফোরিত হতে পারে। তাই খালি অবস্থায় মাইক্রোওয়েভ ওভেন চালু করা থেকে বিরত থাকবেন।

৯। লাল শুকনা মরিচ

আপনি কি শুকনা লাল মরিচ মাইক্রোওয়েভ ওভেনে গরম করার কথা ভাবছেন? ভুলেও এই কাজটি করবেন না। লাল শুকনা মরিচের কারণে আগুন ধরে যেতে পারে আপনার মাইক্রোওয়েভ ওভেনে।

ফটো ক্রেডিট: www.freeimageslive.co.uk

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top