প্রথম ডেটিংয়েই বাজিমাত! জিতে নিন প্রিয়ার মন…

হাতে গুনে আর আটদিন। তাপরই প্রেমের দিবস, ভ্যালেন্টাইনস ডে। এদিকে এখনও সাহস করে প্রেয়সীকে বলে ওঠা হয়নি নিজের মনের  কথাটা। এই সুযোগ! যা বলার, যা জানানোর তা জানিয়ে দিতে হবে সেদিনই। কথায় আছে, “ফার্স্ট ইমপ্রেশন ইজ দা লাস্ট ইমপ্রেশন।” অতএব? এমন কিছু করতে হবে ফার্স্ট ডেটেই, যা হবে কিছুটা হটকে।

১) ভীষণভাবেই বেসুরো আপনি। বাথরুম সিঙ্গারের বেশি উচ্চতায় আর কোনওদিনই উঠতে পারেননি। কুছ পরোয়া নেহি। ফার্স্ট ডেটিংয়ে তাহলে আপনি যেতেই পারেন কোনও কারাওকে বারে। বেসুরো গানের সঙ্গে খুনসুটি, ইয়ার্কি-মজা। আপনার ফার্স্ট ডেট হয়ে থাকবে মেমরেবল।

২) একটু নস্টালজিয়া ও রোম্যান্সে ভরপুর ডেটিং উপভোগ করতে আপনার প্রেয়সীকে নিয়ে চলে যেতে পারেন কোনও মনোরম সাবেক হোটেলে। একে অপরকে জানার উত্তম সুযোগ মিলবে সেখানে।

৩) খেলাধুলো ভালোবাসলে নিয়ে যেতে পারেন কোনও রেসিং কোর্সে বা ভিডিও গেম পার্লারে। সঙ্গে থাকতে হবে পছন্দসই কোনও ড্রিংকস।

৪) এক গ্লাস ওয়াইন হাতে নিয়ে বসে যেতে পারেন কোনও খোলা মাঠে বা পার্কে। একটু নিরিবিলিতে। একান্তে হাতে হাত রেখে উপভোগ করতে পারেন উষ্ণতা।

৫) কথায় কথায় জেনেছিলেন, ওর নাকি ভূতে খুব ভয়! ব্যাস, আর দেরি কেন? প্রথম ডেটিংয়ে এটাই হোক আপনার তুরুপের তাস। বেশ গা ছমছম পুরনো কোনও এক জায়গায় নিয়ে চলুন প্রেয়সীকে। দেখবেন, সেখানে সামান্য শুকনো পাতার আওয়াজ বা ঝিঁ ঝিঁ পোকার ডাকেই তিনি কেমন ভয় পেয়ে আপনাকে জড়িয়ে ধরে! আর আপনিও তখন সুখের সপ্তম স্বর্গে।

৬) আপনারা দুজনেই কি ভোজনরসিক? তাহলে কোনও এক নামজাদা রেস্তরাঁয় রবিবার দুপুরটায় অনায়াসে জমাটি আহার সারতে পারেন। এক্সপেরিমেন্ট করতে পারেন বিভিন্ন আনকোরা খাবারের আইটেম নিয়ে। হলপ করে বলতে পারি, ভবিষ্যতের জন্য বেশ হাসির খোরাক হয়ে থাকবে দিনটা।

৭) পড়ন্ত বিকেলে নদী পাড়ে একসঙ্গে বসে উপভোগ করতে পারেন সূর্যাস্ত। গরম গরম চা, কফির সঙ্গে দুজনে মিলে সূর্যোদয় দেখাও কিন্তু মন্দ নয়।

৮) কোন এক ছোটোবেলায় নাচ শিখেছিলেন। তারপর অনভ্যাসে সেসব কবে ভুলে মেরে দিয়েছেন। তাহলে বলি, ফার্স্ট ডেটে আরেকবার ট্রাই করুন। ডিস্কে গিয়ে হাত ধরাধরি করে টুইস্ট করতে মন্দ লাগবে না। আর একটু ভুল স্টেপিং হলে পরই দুজনে মিলে তখন পপাতধরণীতলে। হাল্কা ছোঁয়া। একটু উষ্ণতা।

৯) প্রথমে ডেটকে স্মরণীয় করে রাখতে চলে যেতে পারেন কোনও পটারিতে। এমন কিছু বানাতে পারেন, যা আপনাদের দুজনের কাছেই স্মৃতি হয়ে থাকবে।

১০) আজকের দিনটার জন্য নিজের গাড়িটাকে বরং গ্যারেজেই রাখুন। তার চেয়ে বরং দুজনে মিলে শহর ঘুরে বেড়ান পাবলিক ট্রান্সপোর্টে। দেখবেন, আপনার এতদিনের চেনা শহরটা কেমন যেন আজ নতুন নতুন। চেনা রাস্তাগুলো অচেনা রোমাঞ্চ নিয়ে ধরা দিচ্ছে আপনাদের দুজনের কাছেই।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top