নানাবাড়ি যেতে ট্রেন চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে শিশুর চিঠি

কুষ্টিয়ার মিরপুর থেকে নানার বাড়ি গোপালগঞ্জে যাওয়ার জন্য একটি ট্রেন চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি লিখেছে দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী তোয়াশ জোয়ার্দার।

সে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সুলতানপুরের মহাম্মদ আলী জোয়ার্দারের ছেলে এবং ‘আমরা নতুন শিক্ষা নিকেতন’র ছাত্র।

শনিবার (০৬ জুলাই) স্কুলছাত্র তোয়াশের বাবা মহাম্মদ আলী জোয়ার্দার প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তোয়াশের খোলা চিঠিটি বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো- ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পত্রের প্রথমে আমার সালাম নিবেন। আশাকরি আপনি আল্লাহর রহমতে খুব ভালো আছেন। আমিও ভালো আছি।

তোয়াশের খোলা চিঠিমাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমাদের প্রিয় মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কবুতরকে খুবই ভালোবাসতেন। আমিও কবুতরকে খুবই ভালোবাসি। আমি গত ২২ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে আমার বাবা, মা, বড়ভাই, চাচা ও চাচীসহ ৬ জন মিলে পবিত্র ওমরাহ হজ পালন করতে মক্কা ও মদিনাতে গিয়েছিলাম। মদিনাতে আমি ও আমার বড় ভাই কবুতরকে গম খেতে দিয়েছি। সে কারণে আপনার কাছে আমার আকুল আবেদন, আমাদের মহানবী (স.) ও বঙ্গবন্ধুসহ সবার প্রিয় ‘কবুতর এক্সপ্রেস’ নামে ১টি আন্তঃনগর ট্রেন গোপালগঞ্জ থেকে ঈশ্বরদীগামী দ্রুত চালু করবেন। যাতে করে আমি ও আমার পরিবার সবাই মিলে মিরপুর স্টেশন থেকে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানির ধনগ্রামে নানুরবাড়ি যেতে পারি। আপনি আমার নানুরমত প্লিজ দয়া করে আমার অনুরোধটি রাখবেন। আমি ‘আমরা নতুন শিক্ষা নিকেতন’র ২য় শ্রেণির ছাত্র। আমার রোল নম্বর ০১’।

তোয়াশের বাবা মহাম্মদ আলী জোয়ার্দার বাংলানিউজকে জানান, ছোটবেলা থেকে সে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শোনে। ০৭ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা পরিষদের অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চ এর ভাষণ দেয় তোয়াশ। এছাড়া ২০১৮ সালে মহান বিজয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানেও বঙ্গবন্ধুর ভাষণ দেয় সে।

তিনি আরো জানান, তোয়াশের নানাবাড়ি গোপালগঞ্জে। তার খুব ইচ্ছা ট্রেনে করে গোপালগঞ্জে তার নানাবাড়ি যাবে। তাই সে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি খোলা চিঠি লিখেছে। চিঠিটি গত ০৪ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর বরাবর পাঠানো হয়েছে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top